লেবুর কিছু রোগ ও তার প্রতিকার (পর্ব ১)

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই ভালো আছেন। Puretrick এর পক্ষ থেকে সবাইকে কে টেক ওয়ার্ল্ডে স্বাগতম। আজ আপনাদের কিছু লেবুর রোগ নিরাময় বিষয়ক পোস্ট দেখাতে যাচ্ছি (পর্ব ১)। আশা করি সবার পছন্দ হবে ইনশাল্লাহ। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

কিছু কথা:

বিশ্বে সাইট্রাস (লেবুজাতীয় ফল) একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ফল। উৎপাদনের দিক থেকে পৃথিবীর ফলগুলোর মধ্যে এর স্থান দ্বিতীয় কিন্তু আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের দিক থেকে এ ফলের স্থান প্রথম (স্যামসন, ১৯৮৬)। বাংলাদেশের আবহাওয়া লেবুজাতীয় ফল (বিশেষ করে এলাচিলেবু, কাগজিলেবু, জাম্বুরা বেশি ভালো হয়) উৎপাদনের জন্য খুবই উপযোগী। এ দেশে লেবুজাতীয় ফলের বার্ষিক উৎপাদন প্রায় ৪০ হাজার মেট্রিক টন। এ দেশের লেবুজাতীয় ফলচাষিরা প্রতি বছর রোগবালাই ও পোকামাকড় দ্বারা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই যেসব রোগ ও পোকা বেশি আক্রমণ করে উহার লক্ষণ ও প্রতিকার দেয়া হলো।

রোগসমূহ:

  • ডাই-ব্যাক (Dic-back)
  • স্ক্যাব (Scab)

ডাই-ব্যাক (Dic-back):

লেবু জাতীয় ফসলের এটা একটি মারাত্মক রোগ। এ রোগের কারণে প্রতি বছর লেবুর ব্যাপক ক্ষতি হয়ে থাকে। এ রোগ কোলিট্রোটিক্যাম গোলিওসপোরডিস (Colletotrichum gloesporiodes) নামক ছত্রাক দ্বারা হয়ে থাকে।

লক্ষণ:

  • পাতার শিরাগুলো হলুদ হয়ে যায়।
  • সম্পূর্ণ পাতা হলুদ হয়ে ঝরে পড়ে।
  • শাখার অগ্রভাগ এবং ছোট ছোট প্রশাখাগুলো পুড়িয়ে যাওয়ার মতো দেখা যায় ও নিচের দিকে ঝুলতে থাকে।
  • আক্রান্ত গাছের আকার ছোট দেখা যায়।
  • কিছু দিনের মধ্যে সম্পূর্ণ গাছ মরে যায়।

প্রতিকার:

  • উন্নত পরিচর্যা পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে।
  • প্রয়োজনীয় পরিমাণ পটাশ ও দস্তা সার প্রয়োগ করতে হবে।
  • ফল সংগ্রহের পর বাগানের আবর্জনা এবং যদি আক্রান্ত অংশ থাকে পুড়িয়ে ফেলতে হবে।
  • ডাইথেন-এম-৪৫ পানিতে ০.৩ % হারে মিশে ১০-১২ দিন পর পর ৩-৪ বার স্প্রে করতে হবে।

স্ক্যাব (Scab):

লেবু গাছের সর্বত্রে এ রোগ দেখা যায়। এ রোগের কারণে ফলের উপরিভাগ অত্যন্ত বিশ্রী হয়ে যায় এবং বাজারমূল্য কমে যায়। ইলন্সিনও ফাউসেটি (Elsinoe fawcetti) নামক এক প্রকার ছত্রাক দ্বারা এ রোগ হয়ে থাকে।

লক্ষণ:

  • পাতা, কচি ডাল ও ফলের ওপর পানি ভেজা দাগ দেখা যায়।
  • প্রয়োজনীয় পরিমাণ পটাশ ও দস্তা সার প্রয়োগ করতে হবে।
  • ফল সংগ্রহের পর বাগানের আবর্জনা এবং যদি আক্রান্ত অংশ থাকে পুড়িয়ে ফেলতে হবে।
  • অনেক ছোট দাগ একত্র হয়ে খসখসে কর্কের মতো হয়ে যায় ও ফলের বাজারমূল্য কমে যায়।

প্রতিকার:

  • রোগাক্রান্ত পাতা, ডালপালা, ফল সংগ্রহ করে পুড়ে ফেলতে হবে।
  • জিংক সালফেট ও ছাই বর্ষার আগে গাছের গোড়ার মাটি আলগা করে প্রয়োগ করতে হবে।
  • বোর্দোমিক্সার এবং ফানজিসাইট (যেমন- কুপরাভিট ০.৩ % হারে ২-৩ বার প্রয়োগ করতে হবে) স্প্রে করতে হবে।

পরিশেষে:
এই ছিল লেবুর রোগ ও তার প্রতিকার নিয়ে পোস্টের প্রথম পর্ব। পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ, আশা করি ভালো থাকবেন, পরের পোস্টে দেখা হবে। পোস্ট ভালো লাগলে অবশ্যই কমেন্ট করে আপনার মতামত জানান।

ধন্যবাদ!

আমাদের ফেজবুক পেইজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন:

Facebook Page

Md. Mojammel Haque

Md. Mojammel Haque

Share for know.............

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Post comment